Ibrahim Cardiac
 
 
 
 
 
 
 
বিশ্ব স্ট্রোক দিবস ২০২১ উপলক্ষে সাইন্টিফিক সেমিনার, বিনামূল্যে চিকিৎসকের পরামর্শ এবং স্ট্রোক ইভ্যালুয়েশন ও রিস্ক এসেসমেন্ট ক্যাম্পেইন PDF Print E-mail
Saturday, 30 October 2021 14:49

বিশ্ব স্ট্রোক দিবস ২০২১ উপলক্ষে

সাইন্টিফিক সেমিনার,

বিনামূল্যে চিকিৎসকের পরামর্শ এবং

স্ট্রোক ইভ্যালুয়েশন ও রিস্ক এসেসমেন্ট ক্যাম্পেইন

 

২৮/১০/২০২১ ইং তারিখ বৃহস্পতিবারে ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতাল ও রিসার্চ ইন্সটিটিউটে আয়োজন করা হয়

 

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অনুযায়ী স্ট্রোক মস্তিস্কের একটি ভয়াবহ রোগ যা বিশ্বে ২য় প্রধান মৃত্যুর কারন । প্রতি বছর প্রায় ১ কোটি ৩৭ লক্ষের ও অধিক মানুষ বিশ্বব্যাপী স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে থাকেন এবং তাদের মাঝে ৬০ শতাংশ রোগী মৃত্যু বরন করেন। বেঁচে থাকা রোগীরা দীর্ঘমেয়াদী শারীরিক ও মানসিক বৈকল্যে ভুগে থাকেন। বিশ্ব স্ট্রোক সংস্থা প্রতি বছর ২৯ অক্টোবর ‘বিশ্ব স্ট্রোক দিবস’ হিসেবে পালন করে থাকেন বিশ্বব্যাপী সাধারন মানুষকে স্ট্রোকের প্রতিরোধ ও প্রতিকার সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য। এবারের স্ট্রোক দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয় হিসেবে বেঁছে নেওয়া হয়েছে- Minutes can save lives বা মিনিট বাঁচায় জীবন ।

বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির একটি স্বনামধন্য অলাভজনক সেবামূলক প্রতিষ্ঠান হিসেব ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতাল ও রিসার্চ ইন্সটিটিউট দীর্ঘদিন ধরে রোগীকে চিকিৎসার পাশাপাশি এমন সচেতনতা মূলক কার্যক্রম আয়োজন করে আসছে। একই ধারাবাহিকতায় গত ২৮ অক্টোবর ২০২১ ইং তারিখে সকাল ১০ টা থেকে ২ টা পর্যন্ত ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালের নিউরোসার্জারী বিভাগ এর সার্বিক তত্বাবধানে বিশ্ব স্ট্রোক দিবস উদযাপন ও সায়েন্টেফিক সেমিনার এর আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মোঃ মুরাদ হাসান,এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে এবং জনাব লোকমান হোসেন মিয়া, সিনিয়র সচিব, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রণালয় মহোদয় এর উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও কেবিনেট মিটিং এবং রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ কাজে তিনি ব্যস্ত থাকায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পারেননি। এক বিশেষ বার্তায়  এই অনুষ্ঠানের সার্বঙ্গীন সাফল্য কামনা করে স্ট্রোক রোগ সম্পর্কে সকলের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সকলকে কাজ করে যাবার ব্যাপারে সরকারের পক্ষ হতে উৎসাহ প্রদান করেন। জাতীয় অধ্যাপক ডাঃ এ কে আজাদ খান, সভাপতি, বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি মহোদয় এর অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও বিশেষ কারন বশত তিনি অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পারেননি। তিনি অনুষ্ঠানের সার্বঙ্গীন উন্নতি কামনা করেন। উক্ত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ডাঃ কনক কান্তি বড়ুয়া, প্রেসিডেন্ট, বাংলাদেশ সোসাইটি অব নিউরোসার্জন্স এবং প্রাক্তন উপাচার্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, অধ্যাপক ডাঃ মোশারফ হোসেন, প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট, বাংলাদেশ সোসাইটি অব নিউরোসার্জনস ও জনাব মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন, মহাসচিব, বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক মাহমুদর রহমান, চেয়ারম্যান, বোর্ড অব অ্যাডভাইজার্স, ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হসপিটাল এন্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউট। দেশ বরেণ্য নিউরোলোজিস্ট, নিউরোসার্জন সহ ও বিভিন্ন ইন্সটিটিউট এর চিকিৎসকগণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও সিনিয়র কনসালটেন্ট অধ্যাপক এম এ রশীদ শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি উল্লেখ করেন স্ট্রোক একটি পাবলিক হেলথ ইমার্জেন্সি এবং বিশ্ব জুড়ে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিশ্ব স্ট্রোক সংস্থা প্রতিবছর এই দিবসটি পালন করে থাকেন নানা কর্মসূচীর মাধ্যমে। একই ধারাবাহিকতায় এই প্রতিষ্ঠান অপামার জনসাধারনের জন্য শুধু চিকিৎসার ক্ষেত্রেই নয় বরং স্ট্রোক প্রতিরোধে সর্বোচ্চ সেবা প্রদানের লক্ষে কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য সেবা নেটওয়ার্কের পরেই দ্বিতীয় স্বাস্থ্য সেবা প্রদান কারী প্রতিষ্ঠান। দক্ষ জনবল সৃষ্টিতে এ সমিতি ও তার অধিনস্থ প্রতিষ্ঠান সমূহ সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছে। আগামীতে নিউরোসার্জারি বিষয়ে রোগীর সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিতে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স চালুর প্রস্তুতি নিচ্ছে ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতাল।

অনুষ্ঠানের ২ টি পর্বের মাঝে প্রথম পর্বে সায়েন্টেফিক সেমিনার ছিল যেখানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সহযোগী অধ্যাপক ও নিউরোসার্জারি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডাঃ মোহাম্মদ নজরুল হোসেন। তিনি ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালে নিউরোসার্জারি বিভাগের অগ্রযাত্রা সম্পর্কে সকলকে অবহিত করেন। একই সাথে এই সেন্টারে বিশ্বমানের নিউরোসার্জারি সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে এবং স্ট্রোক ইউনিটে রোগীদের সেবা দেওয়া হয়ে থাকে সে ব্যাপারে সকলকে অবগত করেন। স্ট্রোকে আক্রান্ত রোগীদের বিশেষ ক্ষেত্রে জরুরী শল্য চিকিৎসার মাধ্যমে সেবার বিভিন্ন উপায় সম্পর্কে তিনি তার বক্তব্য তুলে ধরেন। এছাড়া আরো প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউরোলোজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ শহীদুল্লাহ সবুজ । তিনি ইশকেমিক স্ট্রোকজনিত রোগীদের দ্রুত চিকিৎসার ব্যাপারে সকলকে উদ্বুদ্ধ করেন। আরো প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বারডেম জেনারেল হাসপাতালের নিউরোলোজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান ডাঃ রুমানা হাবিব। তিনি স্ট্রোকে আক্রান্ত রোগীদের সাথে কোভিড ১৯ সংক্রমনের জটিলতা ও তার চিকিৎসা সম্পর্কে সকলকে অবহিত করেন। জনাব মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন, মহাসচিব, বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি, তার বক্তবে বলেন- বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি বিশ্বের সর্ব বৃহৎ ডায়াবেটিক সমিতি। ডায়াবেটিস রোগীদের স্ট্রোকে আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা ২-৪ গুন বেড়ে যায়। তাই দেশের জনগনের মাঝে বিশ্বমানের সেবা পোঁছে দেবার লক্ষে ২০১৯ সালে ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালে নিউরোসার্জারি বিভাগ চালু করা হয় যা পরবর্তীতে নিউরোসাইন্স সেন্টারের সূচনা করে।

এরপর আগত অতিথিদের বক্তব্য ও আলোচনা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রথম পর্বের সমাপ্তি ঘোষনা হয়।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে পূর্ব রেজিস্ট্রেশনকৃত রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসকের পরামর্শ ও স্ট্রোক রোগের ঝুঁকি নির্ণয়ে দেশের বিভিন্ন স্থান হতে আগত রোগীদের সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে।

 

নিউরোসার্জারি বিভাগ

ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতাল ও রিসার্চ ইন্সটিটিউট